fbpx
নতুন খবরপশ্চিমবঙ্গ

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বিষধর সাপের সাথে তুলনা করলেন রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠি।

গত ১৪ ই ফেব্রুয়ারি জম্মু-কাশ্মীরের পুলওয়ামায় ভয়াবহ জঙ্গি হামলায় প্রাণ হারিয়েছেন ৪০ জনেরও বেশি ভারতীয় সেনা জওয়ান। আর তার জবাবে ১২ দিনের মাথায় ভারত সরকারের তরফ থেকে এয়ার স্ট্রাইক করে পাকিস্তানের সমস্ত জঙ্গি ঘাঁটিকে একেবারে গুড়িয়ে দেওয়া হয়, সেই সঙ্গে ৪০০ জনের বেশি জঙ্গিকে খতম করেছে ভারতীয় বায়ুসেনা। কিন্তু দুঃখের বিষয় এটাই যে ভারতীয় বায়ুসেনা এত বড় একটি কাজ করে এলো কিন্তু ভারতবর্ষের সমস্ত বিরোধী দলের নেতা মন্ত্রীরা শুধুমাত্র প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে আক্রমণ করার জন্য এই সাফল্য নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন। তারা প্রশ্ন তুলেছেন আদেও কি এয়ার স্ট্রাইক করা হয়েছে? নাকি এটা শুধুমাত্র একটি ভুয়ো খবর আর বিরোধীদের এহেন আচরণের দেশজুড়ে অনেকেই ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন, এবার সেই তালিকায় নাম লেখালেন পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠী।

বিরোধীদের এই ধরনের প্রশ্নের রাজ্যপাল জানিয়েছেন যে এরকম প্রশ্ন সব সময় দেশের সেনাবাহিনীর মন বলে আঘাত করে। দেশের সেনাবাহিনীকে ভেতর থেকে দুর্বল করে দেয়। সেই সাথে তিনি জানিয়েছেন যে, যে বা যারা এয়ার স্ট্রাইক নিয়ে প্রশ্ন তুলছে তারা আদতে এক একজন বিষধর সাপ। এই দিন রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠী সরাসরি নাম না করে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কেও কটাক্ষ করতে ছাড়েননি।

এই দিন রাজ্যপাল একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে বলেন যে অভিনন্দন ফিরে এসেছেন, কিন্তু এখন দেশের মধ্যেই রয়ে গিয়েছে বেশ কয়েকজন বিষধর সাপ যারা বারবার ভুলভাল প্রশ্ন করে দেশে সেনা বাহিনীর মনোবল দুর্বল করে দিচ্ছেন। যেটা একজন ভারতীয় হিসাবে অত্যন্ত দুঃখজনক কারণ সেনাবাহিনী পাকিস্তানে জঙ্গি খাঁটি গুলি ধ্বংস করে এসেছে তার প্রমান পাকিস্তান নিজেই দিয়েছে কিন্তু ভারতের মধ্যে অনেকে এটা বিশ্বাস করতে চাইছেন না। এর ফলে সেনাবাহিনীর মনোবলে চিড় ধরবে। এই অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে প্রধানমন্ত্রীর ভাষাতেই তিনি বিরোধীদের আক্রমণ করেন।

আর রাজ্যপালের এহেন মন্তব্যের পর থেকেই ক্ষোভ প্রকাশ করে চলেছেন একের পর এক তৃণমূলের নেতা মন্ত্রী। এই দিন কলকাতা শহরের মেয়র ফিরহাদ হাকিম থেকে শুরু করে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় এবং তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও ব্রায়েন রাজ্যপালের মন্তব্যের সমালোচনা করেছেন।
#অগ্নিপুত্র

Close