ছিনতাই হওয়া তিন লক্ষ টাকা সমেত গ্রেফতার তৃণমূল নেতা

এক কুখ্যাত দুষ্কৃতীকে গ্রেপ্তার করল কৃষ্ণগঞ্জ থানার পুলিশ। ধৃত একজন তৃণমূল (All India Trinamool Congress) নেতা বলে অভিযোগ।

গতকাল রাতে এক চাল ব্যবসায়ীকে রাস্তায় ঘিরে ধরে টাকা ছিনতাই করে তিন দুষ্কৃতী। তার মোবাইলও ছিনিয়ে নেওয়া হয়। এই ঘটনার ২৪ ঘন্টার মধ্যেই পুলিশ তিন অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে এবং উদ্ধার করে টাকা।

জানা গেছে, ভীমপুর আসাননগরের এক চাল ব্যবসায়ী প্রতিদিনের মতোই বিভিন্ন জায়গা থেকে টাকা সংগ্রহ করে ফিরছিলেন মাজদিয়া থেকে। ফেরার পথে কৃষ্ণগঞ্জের ডাকাতে কালি মাঠ পেরোবার সময় তিনি বুঝতে পারেন তাকে পিছন থেকে কয়েকজন বাইক নিয়ে ধাওয়া করছে। যতটা সম্ভব জোরে চালিয়ে যেতে গিয়ে একসময় তার সামনের দিকে একটা লরির আলো চোখে পড়ায় তিনি থমকে যান এবং বাইকের গতি কমাতে বাধ্য হন। সেই সময় পেছন থেকে কয়েকটা বাইক তাকে ঘিরে ধরে মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে ৩ লক্ষ ৪০ হাজার টাকা ছিনতাই করে নেয়। সঙ্গে মোবাইলটাও ছিনতাই করে নেয়। গতকাল রাতে তিনি থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। পুলিশ তদন্তে নামে। তদন্তে নাম উঠে আসে তৃণমূল নেতা লালটু ওরফে অভিজিৎ ঘোষের। গ্রেপ্তার করা হয় তৃণমূল নেতা লালটু ওরফে অভিজিৎ ঘোষ সহ নরেশ বিশ্বাস ও উত্তম ঘোষকে। পুলিশ অভিযুক্তদের তিনদিনের রিমান্ডে নিয়ে আসেন।

আসাননগর পঞ্চায়েতের ডফরপোতা গ্রামের ২০২ নম্বর বুথের তৃণমূলের সদস্য সঞ্জিত ঘোষ বলেন, উনি এরকম কাজ করতে পারেন না। তবে যদি এটা করে থাকেন অন্যায় করেছেন। পুলিশ আইন মাফিক কাজ করুক এবং আইনে সাজা পাক। তৃণমূল পাশে দাঁড়াবে না।

তৃণমূল নেতা গ্রেপ্তার প্রসঙ্গে বিজেপি নেতা ডাঃ মুকুটমণি অধিকারী জানান, ভারতীয় জনতা পার্টি ন্যায় এবং সত্যের পথে চলে। এক্ষেত্রে যে অপরাধী হবে তাকে সাজা পেতেই হবে। আর টিএমসি পার্টি দুর্নীতিগ্রস্ত লোকজনে ভর্তি হয়ে গেছে। এটা নতুন কিছু নয়। আমরা এর বিরুদ্ধে আন্দোলনে নামবো। জনমত গড়ে তুলবো। তার কঠিনতম সাজা হোক এটা আমি চাই।