তৃণমূল কর্মীদের ভয় পান মমতা ব্যানার্জী! দাবি ঘিরে জোর চাঞ্চল্য রাজ রাজনীতিতে

গঙ্গার পাড় বুজিয়ে বহুতল নির্মাণের বিষয়ে প্রতিবাদ জানালেন তৃণমূলকর্মী (All India Trinamool Congress) বিশ্বজয় বন্দ্যোপাধ্যায় (Biswajoy Banerjee)। প্রতিবাদ করার পাশাপাশি কর্তৃপক্ষের বারণ উপেক্ষা করে নির্মীয়মান বহুতলের বেশ কয়েকটি ছবিও তোলেন তিনি। এমনকি বহুতলের কর্মীদের কাজের বাধাও দেন এই তৃণমূলকর্মী। এতদূর অভিযোগগুলো মেনে নেওয়া গেলেও, মানতে পারা গেল না প্রোমোটারকে দেওয়া তাঁর হুমকির বাণী।

বহুতল নির্মানের অভিযোগ
ঘটনাটি ঘটেছে হাওড়ার বালি বিধানসভা এলাকায়। অভিযোগ উঠেছে বিশ্বজয় বন্দ্যোপাধ্যায় নামে এক তৃণমূলকর্মী বহুতল নির্মাতা প্রোমোটার মহেশ সুরাখাকে ফোন করে হুমকি দিয়েছেন। কারণ ওই অঞ্চলে গঙ্গার পাড় বুজিয়ে বহুতল বানানো হচ্ছে। ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে নানাভাবে হুমকি দিতে থাকেন তৃণমূলকর্মী বিশ্বজয় বন্দ্যোপাধ্যায়। সেইসঙ্গে তোলেন বেশ কয়েকটি ছবিও।

তৃণমূলকর্মীর উক্তি
নিয়ম না মেনে বহুতল নির্মান করায় ওই তৃণমূলকর্মী ফোন করে হুমকি দেন প্রোমোটারকে। এই ফোন বার্তাই ডেকে আনে ঘোর বিপর্যয়। ফোনে তৃণমূলকর্মী বলেন, ‘আমার নাম শুনলে চমকে ওঠেন মমতা ব্যানার্জী! মদন মিত্র, মুকুল রায় এমনকি মমতা ব্যানার্জীও আমার কথায় তিড়িং করে চেয়ার ছেড়েও উঠে পড়েন! আমি দেখিয়ে দেব, কী করতে পারি।’

অভিযোগ অস্বীকার করেছেন তৃণমূলকর্মী
এরকম এক ভয়ঙ্কর উক্তি করে বর্তমানে নিজেই বিপাকে পড়েছেন ওই তৃণমূলকর্মী বিশ্বজয় বন্দ্যোপাধ্যায়। সম্পূর্ণ কথোপকথন রেকর্ড করে ওই প্রোমোটার বালি থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। তবে অভিযুক্ত তৃণমূলকর্মী অবশ্য এই ঘটনাকে সম্পূর্ণ অস্বীকার করে জানিয়েছেন, ‘‌নিয়ম উলঙ্ঘন করে বহুতল নির্মাণের খরব পেয়ে সেখানে গিয়ে প্রতিবাদ করে বেশ কয়েকটি ছবিও তুলি। তবে মুখ্যমন্ত্রী, মুকুল রায় বা মদন মিত্রে আমি কিছুই বলিনি’।

বিধায়কের মন্তব্য
এই ঘটনা প্রসঙ্গে বালির বিধায়ক বৈশালী ডালমিয়া জানিয়েছেন, ওই প্রোমোটর মহেশ সুরাখা, নিয়ম না মেনেই গঙ্গার পাড় বুজিয়ে বহুতল নির্মাণ করছিলেন। পূর্বেই এবিষয়ে স্থানীয় বাসিন্দারা প্রতিবাদ করে অভিযোগ জানিয়েছিলেন। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রীর বিষয়ে কেউ কিছু বলেছে কিনা, সেকথা তাঁর জানা নেই বলেই তিনি জানিয়েছেন।