আন্তর্জাতিক

কি অবস্থা! পাকিস্তানে এখন টমেটোর থেকে বোম সস্তা

জম্মু কাশ্মীর থেকে মোদী সরকার ৩৭০ ধারা বিলুপ্তির পর পাকিস্তান ক্ষোভে ফেটে পড়ে ভারতের সাথে ব্যাবসা বন্ধ করে দেয়, আর পাকিস্তানের এই সিদ্ধান্ত এখন পাকিস্তনকে কাঁদিয়ে ছাড়ছে। ভারত থেকে আমদানি করা সামগ্রির উপর পুরোপুরি নিষেধাজ্ঞা জারি করার পর পাকিস্তানে টমেটোর দামে আগুল লেগে যায়। পাকিস্তানে এখন টমেটো ৩০০ টাকা কেজি।

টমেটোর দামে এতো বৃদ্ধি দেখে এটা পরিস্কার যে প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের ভারতের সাথে ব্যাবস্যা বন্ধ করার সিদ্ধান্ত সোজাসুজি পাকিস্তানের জনতার মাথায় বাজ পড়েছে। প্রসঙ্গত, ভারতের তরফ থেকে রোজ পাকিস্তানে শাক, সবজি আর টমেটো পাঠানো হয়, আর এই কারণে পাকিস্তানে সবজি আর টমেটোর দাম নিয়ন্ত্রণে থাকে। কিন্তু পাকিস্তান সরকারের এই সিদ্ধান্তের পর এবার ভারত থেকে টমেটো সাপ্লাই বন্ধ হয়ে গেছে। আর সেই কারণে পাকিস্তানে টমেটোর দাম আকাশ ছোঁয়া।

আরেকদিকে পাকিস্তান নিজের পায়ে নিজেই কুড়োল মারার এই সিদ্ধান্তের পর ভারতীয় ট্রাক অপারেটর্সরা বলেন, ‘পাকিস্তান যদি ভাবে যে ভারতের সাথে ব্যাবসা বন্ধ করে ভারতের ট্রাক ওনার্স, ভারতের কৃষক এবং ভারত সরকারের হবে, তাহলে সেটা পাকিস্তানের মূর্খতা। কারণ পাকিস্তানের এই সিদ্ধান্তের পর ভারত থেকে পাকিস্তানে সামগ্রী না গেলে, পাকিস্তানে হাহাকার পড়ে যাবে। সেখানে প্রতিটি জিনিসের দাম আকাশ ছোঁয়া হয়ে যাবে।”

জম্মু কাশ্মীর নিয়ে ভারতের তরফ থেকে এই সিদ্ধান্তের পর পাকিস্তান এমন হতাশ হয়েছে যে, ভারতকে তাঁরা আর্থিক দিক থেকে আঘাত দেওয়ার জন্য একের পর এক সিদ্ধান্ত নিচ্ছে, আর সেই সিদ্ধান্তে পাকিস্তান নিজেই বরবাদ হয়ে যাচ্ছে। পাকিস্তানের ইমরান খান সরকার প্রথমে সমঝোতা এক্সপ্রেস বন্ধ করে দেয়, এরপর দিল্লী থেকে লাহোর বাস সেবা বন্ধ করে দেওয়া হয়।

পাকিস্তান কাশ্মীর ইস্যু আন্তর্জাতিক মহলে তুলতে চাইতে গিয়েও বারবার চড় খেয়ে পিছিয়ে যাচ্ছে। প্রথমে সংযুক্ত রাষ্ট্র, আমেরিকা আর চীনের পর এবার রাশিয়াও পাকিস্তানকে সমর্থন করবে না বলে জানিয়ে দেয়। সবাই একটাই কথা জানায় যে, এটা ভারতের অভ্যান্তরিন মামলা এখানে তৃতীয় পক্ষের হস্তক্ষেপ না করাই ভালো।

Close