মাই ইন্ডিয়া ডেস্কঃ মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী বুধবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সাথে সাক্ষাৎ করেন। লোকসভা নির্বাচন ২০১৯ এর পর এই প্রথমবার তিনি প্রধানমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাৎ করেন। মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী বলেন, প্রধানমন্ত্রী মোদীর সাথে সাক্ষাতের প্রধান কারণ হল কেন্দ্রের সাথে রাজ্যের সম্পর্ক মধুর করা। যদিও কেন্দ্র বরাবরই রাজ্যের সাথে মধুর সম্পর্ক রাখার চেষ্টা করে গেছে। কিন্তু সেই সম্পর্কে বারবার তিক্ততা এনেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী।

প্রধানমন্ত্রীর সাথে এই সাক্ষাতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী রাজ্যের জন্য বিশেষ ফান্ড নিয়ে কথাবার্তা বলেন। মমতা ব্যানার্জী বৈঠকের পর বলেন, প্রধানমন্ত্রী মোদীর সাথে আমার ভালই কথাবার্তা হয়েছে। মমতা ব্যানার্জী বলেন, তিনি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে পশ্চিমবঙ্গে আসার আমন্ত্রণ জানিয়েছেন। মমতা ব্যানার্জী জানান যে তিনি কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ এর সাথে সাক্ষাৎ করার জন্য সময় চেয়েছেন। মমতা ব্যানার্জী বলেন, তিনি অর্থ মন্ত্রী নির্মলা সীতারমন এর সাথেও দেখা করতে চান।

মমতা ব্যানার্জী বলেন, উনি পশ্চিমবঙ্গের নাম পালটে বাংলা করার আবেদন জানিয়েছেন। মমতা ব্যানার্জী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর সাথে এই বৈঠকে বেকারত্ব নিয়েও আলোচনা হয়। বৈঠকের পর মুখ্যমন্ত্রী এটাও বলেন যে, পশিমবঙ্গে এনআরসি লাগু করা যাবেনা। প্রধানমন্ত্রীর সাথে এই নিয়ে কোন আলোচনা হয়নি।

মমতা ব্যানার্জী বলেন, তিনি প্রধানমন্ত্রীর সাথে কোটি কয়লা খনি নিয়েও কথাবার্তা বলেছেন। মমতা বলেন, আমি প্রধানমন্ত্রীর সাথে বিশ্বের অন্যান্য বড়বড় কোল ব্লক নিয়ে আলোচনা করি। এই কোল ব্লকের কার্যক্রমে অনেক মানুষের বেকারত্ব ঘুচবে। মমতা বলেন, প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমি আবেদন করেছি যে, দুর্গাপূজার পর তিনি সময় ঠিক করে কোল ব্লক অনুষ্ঠানে যেন অংশ নেন।

মমতা বলেন, যদি সময় পাই তাহলে, আমি আগামী কাল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ এর সাথে এখা করব। আমি ওনার সাথে দেখা করার জন্য সময়ও চেয়েছি। যদিও তিনি এখন ঝাড়খণ্ডে আছে, সময় পেলে ওনার সাথে দেখা করেই যাব। মমতা ব্যানার্জী বলেন, এটা কোন রাজনৈতিক সাক্ষাৎ না, এটা কেন্দ্র আর রাজ্যের সমান্তরলে চলার জন্য সাক্ষাৎ মাত্র।

আপনাদের জানিয়ে রাখি, এই মমতা ব্যানার্জীই ২০১৯ এর নির্বাচনী প্রচারে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে প্রধানমন্ত্রী মানতে চাননি। এমনকি ফেণী ঝড়ের পর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জীকে দুইবার ফোন করলেও, উনি ফোন তোলার প্রয়োজন মনে করেন নি। এছাড়াও মমতা ব্যানার্জী বর্তমান কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ-কে গুন্ডা বলেও সম্বোধন করেছিলেন। কিন্তু ওনার এখন এই সৌজন্যতা অন্য কিছুর দিকে ইশারা করছে।